(adsbygoogle=window.adsbygoogle ।।{}).push({ google_ad_client:"ca-pub-2524552414847157", enable_page_level_ads: true }) (adsbygoogle=window.adsbygoogle ।।{}).push({ google_ad_client:"ca-pub-2524552414847157", enable_page_level_ads: true })
 

মনের রিফ্রেশমেন্ট : পরিবারের সঙ্গে সমুদ্র-সৈকতে একটি উইক-এন্ড ট্যুর


দৈনন্দিন রুটিনের একঘেয়েমি এবং গ্রীষ্মকালীন দহন - সমস্যার থেকে বেরিয়ে, আমরা সমুদ্র সৈকতে পৌঁছলাম, বঙ্গোপসাগরের তীরে; দীঘা' । অন্যান্য অনেক পর্যটকদের মতো এটা আমাদেরও - পরিবারের সাথে একটি চমৎকার সফর ছিল। আমরা একটি ভিডিওর মাধ্যমে সমুদ্র সৈকতের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যকে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। আপনারা নীচে দেওয়া লিঙ্ক অ্যাড্রেস এ দেখতে পারেন। ভিডিওটি।

সমস্ত গতানুগতিকতাকে সরিয়ে রেখে, দিগন্ত জুড়ে ছড়িয়ে থাকা বঙ্গোপসাগরের তীরে দাঁড়ালে, সমুদ্র থেকে বয়ে আসা মৃদুমন্দ বাতাসের স্পর্শ জুড়িয়ে দেয় শরীর ও মন। একটার পরে একটা উচ্ছসিত তরঙ্গের আছড়ে পড়া দেখতে দেখত - মনের মধ্যে লুকিয়ে থাকা শিশুটাও সমস্ত আড়াল সরিয়ে আসতে চায় যেন।

শিশুদের স্কুলের ছুটির দিন শুরু হলে, বাড়ির কাছের এই সৈকত এক বা দু'দিনের জন্য পরিদর্শনে বেরিয়ে পড়া যেতেই পারে। বাড়িতে পোষ্য প্রাণী এবং গাছপালা যদি থাকে,, অনেক মানুষ কোথাও বেড়াতে যেতে দ্বিধাগ্রস্ত হন। এটা খুবই স্বাভাবিক এবং বেশ সঠিকও বটে। আমরা জানি না এই পোষ্য প্রাণী এবং উদ্ভিদের থেকেও বেশী কোন প্রকৃত বন্ধু বান্ধব এই দুনিয়াতে সত্যিই আছে কিনা। যাইহোক, তাদের জন্য কিছু অস্থায়ী ও সসাময়িক ব্যবস্থা করে, ঘরের চৌহুদ্দি ছেড়ে বেরিয়ে পড়ুন। দীঘায় এসে, আপনার মন ভালো হয়ে যাবে। হ্যাঁ, আমরা এই বিখ্যাত 'দিঘা' সমুদ্র সৈকত এর প্রাকৃতিক সৌন্দর্য সম্পর্কেই বলছি।

দিঘা সমুদ্র সৈকত এখন পর্যটন মানচিত্রের একটি গুরুত্বপূর্ণ ও উল্লেখযোগ্য স্থান। সবাই জানেন। অগণিত পর্যটক এখানে আসেন এবং সমুদ্র-স্নানে অংশ নেন। তবে, সেখানে অনেক পর্যটক আছেন যাঁরা সমুদ্রে স্নান করেন না। জলে পা'টুকু ডুবিয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা বসে থাকে কেউ; কেউবা, বালুকা বেলায় আলগোছে হাঁটে। সমুদ্রের মধ্যে স্নান করা, বা না করা, নির্ভর করে স্ব স্ব সিদ্ধান্তের উপর। যেটা, বিচিত্র যত সাংস্কৃতিক সমাবেশের বৈচিত্র্যের মাঝে মানুষের আনন্দ উদযাপনকেই মূলতঃ তুলে ধরে।

সংক্ষিপ্ত সময়ের এই সপ্তাহান্তের সফর শেষে, প্রত্যেকেই ফিরে যাবে নিজ নিজ গণ্ডির সীমান্তে। মনের কোণে কোন ক্লান্তিও থাকবে না। নিজেকে ফিরে পাওয়ার এই যাত্রা শেষে, থাকবেনা কোন কালিমা চিহ্নও। এখানেও, সাগরকিনারায় কোথাও - ধুয়ে যাাওয়া ক্লান্তির কোনও টুকরোও পড়ে থাকবেনা।

সমুদ্রের ঢেউগুলো আগের মতোই, নিস্পৃহ উদাসীনভাবে গেয়ে যাবে জীবনের মহাসঙ্গীত। যেন, কিছুই আসে যায় না, আমরা তার কিনারায় থাকি বা না থাকি।।

ভিডিওটি দেখুন:

#refreshmentfromdailylife #seashore #PurbaMedinipur

Recent Posts
Archive
Search By Tags