(adsbygoogle=window.adsbygoogle ।।{}).push({ google_ad_client:"ca-pub-2524552414847157", enable_page_level_ads: true }) (adsbygoogle=window.adsbygoogle ।।{}).push({ google_ad_client:"ca-pub-2524552414847157", enable_page_level_ads: true })
 

স্থলপদ্ম


স্থলপদ্ম (বৈজ্ঞানিক নাম: Hibiscus mutabilis) হচ্ছে মালভেসি পরিবারের একটি উদ্ভিদ প্রজাতি। গাছ ৩-৪ মিটার হয় উচ্চতায়, পাতার দুপাশই রোমশ। শরতের সকালবেলায় সুন্দর সাদা হয়ে ফোটা ফুল - বেলা বাড়ার সাথে সাথে, ক্রমে গোলাপি বা লাল বর্ণ ধারণ করে।

এর ফুল ৪-১০ সেমি চওড়া হয় কখনও ১০-১৫ সেমিও হয় ।

ঢেঁড়শ এবং স্থলপদ্ম একই গণের উদ্ভিদ। স্থলপদ্মকে ঠিকমতো ছেঁটে না রাখলে লম্বা লম্বা ডাল ছেড়ে আকর্ষণ হারিয়ে ফেলে। শাখা কলম ও বীজ দ্বারা এর বংশ বিস্তার হয়। আলোযুক্ত স্থানে এই গাছকে লাগানো উচিত। কারন, প্রচুর আলো পছন্দ করে এই গাছ। শীতকাল হ’ল এই গাছকে ছাঁটার উপযুক্ত সময়।

হিবিস্কাস মুউটাবিলিস, Confederate rose, Dixie rosemallow, cotton rose or cotton rosemallow নামেও পরিচিত। এটি এমন এক উদ্ভিদ যা দীর্ঘকালীন ভিত্তিতে তার শোভাবর্ধক ফুলের জন্য চাষ করা হয়। মূলত এশিয়া এবং সংলগ্ন দেশগুলির স্থানীয় ফুলগাছ এটি, এখন অ্যান্টার্কটিকা ব্যতীত সমস্ত মহাদেশেই পাওয়া যায়।

এই গাছ ঝোপ আকারেই বৃদ্ধিপ্রাপ্ত হয়। একটু ঠাণ্ডা অঞ্চলের দিকে এটি বহুবর্ষজীবি গাছের মতো দীর্ঘদিন নিরোগভাবে বাঁচে। ফুলগুলি ডাবল বা সিঙ্গল তথা একক হতে পারে এবং 10-15 সেমি ব্যাসের হতে পারে; এগুলি সাদা বা গোলাপী হয়ে সকালবেলায় খোলে এবং সন্ধ্যা নাগাদ গভীর লাল রঙের হয়ে যায়। তাপমাত্রা রঙ পরিবর্তনের হারকে প্রভাবিত করে। 'রুব্রা' জাতের ফুল লাল হয়ে ফোটে। একক তথা Single প্রজাতির গাছের ফুলগুলি সাধারণত কাপ আকারের হয়। ফুলের মরসুম সাধারণত গ্রীষ্ম থেকে শরতের মধ্যে হয়; তবে, প্রায় সব ঋতুতেই এর ফুল পাওয়া সম্ভব – গাছের স্বাস্থ্য ঠিক থাকলে। কাটিং দ্বারা মূলতঃ বসন্তের শুরুতে সবচেয়ে সহজভাবে গাছটিকে বংশবৃদ্ধির কাজে লাগানো যেতে পারে, তবে কাটিং প্রায় যেকোনও সময়ে নেওয়া যেতে পারে।

এই স্থলপদ্মের কাণ্ড 12-15 ফুট (3.7–4.6 মি) উচ্চতায়ও পৌঁছতে পারে- একটু সাপোর্ট পেলে; তবে ৫- ফুটের (১.৫-১.৮ মিটার) আসপাশের একটি বুশি গাছ যদি আপনার থাকে, যথেষ্ট ফুলের সরবরাহ করে আপনাকে ভ’রিয়ে দেবে।। এই গাছগুলির বৃদ্ধির হার বেশ দ্রুত হয়।

Recent Posts